How to Work Google Adsense | গুগল এডসেন্স কি কিভাবে কাজ করে জেনে নিন সমস্ত তথ্য। - Bangla SMS Point- বাংলা-SMS-পয়েন্ট

Latest

Sunday, September 13, 2020

How to Work Google Adsense | গুগল এডসেন্স কি কিভাবে কাজ করে জেনে নিন সমস্ত তথ্য।

How to Work Google Adsense | গুগল এডসেন্স কি কিভাবে কাজ করে জেনে নিন সমস্ত তথ্য।

google adsense login | google adsense sign up | google adsense tutorial | google adsense youtube | google adsense payment | google adsense earnings per click | google adsense on air | how to use google adsense

আসসালামু আলাইকুম ফ্রেন্ডস,

আজকের এই আর্টিকেলে আমি গুগল এডসেন্স সম্পর্কে কিছু তথ্য নিয়ে আলোচনা করব ! আপনি যদি গুগোল অ্যাডসেন্সে ইন্টারেস্টেড থাকেন তাহলে এই আর্টিকেলটি লাস্ট পর্যন্ত পড়তে থাকুন !

গুগল এডসেন্স কি কিভাবে কাজ করে জেনে নিন সমস্ত তথ্য।
গুগল এডসেন্স কি কিভাবে কাজ করে জেনে নিন সমস্ত তথ্য।

আজকের এই আর্টিকেল এ গুগল এডসেন্সের কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আমরা জানবো যেমন এই কোম্পানি কিভাবে কাজ করে, গুগল এডসেন্স আমাদেরকে কিভাবে তাদের সাথে কাজ করার জন্য অপরচুনিটি দিচ্ছে, পাশাপাশি ইউটিউব এবং ওয়েবসাইটের জন্য এডসেন্স কত ভিউজ এ কত পেমেন্ট করে থাকে, কত সাবস্ক্রাইবার এর জন্য কেমন পেমেন্ট করে থাকে,


হোস্টেড ও নন হোস্টেড একাউন্ট কি এবং অ্যাডসেন্সে এপ্রুভ নিতে  গেলে কোন কোন বিষয়গুলিকে আমাদেরকে লক্ষ রাখতে হবে, এবং কিভাবে এডসেন্স এর ডলার গুলোকে উইথড্র করতে হয়, এইসব বিষয় গুলি নিয়ে এই আর্টিকেল আমরা জানব! 
তো চলুন শুরু করা যাক ….

1. How Adsense Works?


ফ্রেন্ডস প্রথমে আমরা গুগল অ্যাডসেন্স এর মূল কনসেপ্ট বুঝবো, গুগল এডসেন্স এর প্রধান দুটি পাঠ, একটি হচ্ছে অ্যাডভারটাইজার এবং আরেকটি হচ্ছে পাবলিশার! এডভেটাইজ এরা মূলত বিভিন্ন কোম্পানি বা ব্র্যান্ড যাদের কাছে বিভিন্ন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস রয়েছে এবং তারা গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে এগুলোকে প্রমোশন করে থাকে ইউটিউব ভিডিওর উপরে বা বিভিন্ন ওয়েবসাইট গুলোর উপরে!


আপনি যে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট গুলো দেখতে পান এগুলো অ্যাডভারটাইজাররা গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে প্রমোট করে থাকে আর পাবলিশাররা হচ্ছে কনটেন্ট ক্রিয়েটর যারা ইউটিউবে ভিডিও পাবলিশ করছে, যারা ওয়েবসাইটে লেখালেখি করছে এবং যারা অ্যান্ড্রয়েড প্লে স্টোরে অ্যাপ্লিকেশন পাবলিশ করছে, তারা গুগল এডসেন্স এই তিনটি প্লাটফর্মের মাধ্যমে তাদের এড গুলোকে ডিসপ্লে করে থাকে অ্যাডভারটাইজার এর পক্ষ থেকে! 




একটি হচ্ছে ইউটিউব আরেকটি হচ্ছে আপনার নিজের ওয়েবসাইট এবং আরেকটি হচ্ছে এন্ড্রয়েড প্লে স্টোর ! আপনি অ্যাডভারটাইজার হয়েও গুগল এডসেন্স এর সাথে কাজ করতে পারেন এবং পাবলিশার হয়েও এডসেন্স এর সাথে কাজ করতে পারেন!  অথবা অ্যাডভারটাইজার এবং পাবলিশার দুইভাবে ও গুগল এডসেন্স এর সাথে আপনি কাজ করতে পারেন ! এই এডসেন্স এর পুরো প্রক্রিয়াটি কিভাবে কাজ করে এবার সেটা আমি বলছি !


ধরুন একজন এডভেটাইজআর 100 ডলারের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্লেস করল! এইবার গুগোল সে এডভারটাইজআর এর হয়ে সে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট গুলোকে কনটেন্ট ক্রিয়েটর দের কাছে পৌঁছে দেয়, যে গুলো প্রতিনিয়ত লক্ষ কোটি মানুষ ব্যবহার করে থাকে!

এই অ্যাডভার্টাইজমেন্ট গুলো ইউটিউব, প্লেস্টোর, এবং বিভিন্ন ওয়েবসাইট যার ফলে সাধারণ যে ক্রেতা আছে তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রোডাক্ট সার্ভিস গুলো দেখতে পাই! এবং তাদের প্রয়োজনীয় প্রোডাক্ট সার্ভিসগুলো তারা কিনে নেয় এতে করে প্রত্যেকেরই একটি উইন উইন সিচুয়েশন তৈরি হয়! 


প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের প্রোডাক্ট গুলি কে কাস্টমারদের কাছে প্রমোশন করতে পারছে একইসাথে কনটেন্ট ক্রিকেটাররা তাদের কনটেন্টের এগেনস্টে বেনিফিট পাচ্ছে এবং যারা ক্রেতা তারা তাদের প্রয়োজনীয় প্রোডাক্ট গুলি সম্বন্ধে জানতে পারছে এবং তাদের প্রয়োজনে তারা কিনে নিচ্ছে! এই 100 ডলারের মধ্যে 49% গুগল রেখে দেয় এবং বাকি ৫১% গুগোল পাবলিশারদের কে দিয়ে দেয়! 


আপনি যদি এডসেন্স এর সাথে পাবলিশার হয়ে কাজ করতে চান তাহলে আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল শুরু করতে পারেন যেখানে আপনি ভিডিও তৈরি করবেন অথবা আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন যেখানে আপনি আপনার ইন্টারেস্ট রিলেটেড টপিকের উপর লেখালেখি করতে পারেন! অথবা অ্যান্ড্রয়েড প্লে স্টোরে আপনার তৈরি করা অ্যাপ পাবলিশ করতে পারেন ! এগুলো হল পাবলিশার হয়ে কাজ করলে! 


কিন্তু আপনার যদি কোন প্রতিষ্ঠান থাকে তার কাছে কোন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস রয়েছে যেটা আপনি সাধারণ মানুষকে জানাতে চান, প্রচার প্রচারণা করতে চান তাহলে আপনি অ্যাডভারটাইজার হয়েও গুগল এডসেন্স এর সাথে কাজ করতে পারেন এবং আপনার প্রোডাক্ট ও সার্ভিস এর জন্য আপনি পেইড প্রমোশন করতে পারেন! এইভাবে মূলত এডসেন্স প্রোগ্রামটি কাজ করে থাকে !

আমি আশা করছি আপনারা বুঝতে পেরেছেন যে গুগল এডসেন্স আমাদেরকে কি কি অপরচুনিটি দিয়ে থাকে!

২. কত ভিউ এর জন্য পাবলিশাররা কত পেমেন্ট পেয়ে থাকে? 


গুগোল বেসিক্যালি কয়েকটি ফ্যাক্টর উপর ডিপেন্ড করে ডিসাইড করে থাকে যে তারা কত পেমেন্ট করবে, এদের নির্দিষ্ট কোন ফিক্সড অ্যামাউন্ট নেই! এদের মোস্ট ইম্পর্টেন্ট দুটি ফ্যাক্টর হচ্ছে লোকেশন এবং কনটেন্ট টপিক, কনটেন্ট টপিক বলতে যারা কনটেন্ট ক্রিয়েটর তারা অ্যাডভার্টাইজমেন্ট ফ্রেন্ডলি কনটেন্ট তৈরি করলে তারা সেই কনটেন্ট এর জন্য পেমেন্ট ভালো পেয়ে থাকে! যদি ভিউ কমও হয় তাহলেও পেমেন্ট পাওয়া যায়! 

>>অ্যাডভারটাইজার ফ্রেন্ডলি কনটেন্ট কি?

ধরুন আপনি ট্রাভেলিং লাইক করেন এবং আপনি একটা ট্রাভেলিং চ্যানেল শুরু করলেন! সো ট্রাভেলিং রিলেটেড অনেক কোম্পানি রয়েছে যেমন ট্রাভেল এজেন্সি, হোটেল, রিসোর্ট তারা তাদের কোম্পানির যে সার্ভিস গুলো আছে সেগুলো প্রমোট করে থাকে ওই ট্রাভেলিং টাইপের চ্যানেলগুলোতে!


সো এগুলো হলো এডভারটাইস ফ্রেন্ডলি কনটেন্ট এটা জাস্ট একটা এক্সাম্পল দিলাম, 

>>দ্বিতীয় হচ্ছে লোকেশন?

বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া থেকে যদি ভিউ হয় সেক্ষেত্রে পেমেন্ট অনেকটা কম পাওয়া যায় আর ইউরোপ আমেরিকা থেকে ভিউজ হলে সে ক্ষেত্রে পেমেন্টটা প্রায় ডাবলের ও বেশি আসে!

ফর এক্সাম্পল, ওয়ান মিলিয়ন ভিউজ এর জন্য বাংলাদেশ ইন্ডিয়া থেকে যদি ভিউ হয় তাহলে পাবলিশাররা ২৫০ থেকে সাড়ে 300 ডলারের মত পেমেন্ট পেয়ে থাকে! আর যদি ইউরোপ আমেরিকা থেকে ভিউজ হয় তাহলে ওয়ান মিলিয়ন ভিউ এর জন্য 700 থেকে 900 ডলার পর্যন্ত পাওয়া যায়!

৩. ইউটিউবে কত  সাবস্ক্রাইবার এর জন্য গুগল কত পে করে থাকে?


এটার আনসার হচ্ছে সাবস্ক্রাইবার এর জন্য গুগল কখনো পেমেন্ট করে না, আপনার যত মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার হোক না কেন ওটার জন্য গুগল কোন পে করবে না! বেসিক্যালি অ্যাডভার্টাইজমেন্ট ভিউ এর জন্য পেমেন্ট পাওয়া যায়, অ্যাডভার্টাইজমেন্ট এ যদি কেউ ক্লিক নাও করে শুধুমাত্র ভিউ  হয় তার পরেও আপনি পেমেন্ট পাবেন!

৪. হোস্টেড একাউন্ট এবং নন হোস্টেড একাউন্ট কি এবং এটার জন্য আমরা কিভাবে অ্যাপ্রুভ নিতে পারি?


আপনি যে ইউটিউব এর গুগল অ্যাডসেন্স দেখতে পান সেটা হচ্ছে হোস্টেড গুগল এডসেন্স একাউন্ট আর ওয়েবসাইটে যে গুগল এডসেন্স আপনি দেখেন সেটা হচ্ছে গুগল নন হোস্টেড একাউন্ট !

দুটোই হচ্ছে গুগোল অ্যাডসেন্সে অংশ! ইভেন্ গুগল প্লে স্টোরে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ গুলো তে যে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট গুলো দেখা যায় সেটাও গুগোল অ্যাডসেন্সে এরই অংশ !




আপনার একটি অ্যাকাউন্ট দিয়ে আপনি সবগুলো ম্যানেজ করতে পারবেন, আলাদা আলাদা একাউন্ট ক্রিয়েট করতে হবে না! এখন হোস্টেড একাউন্ট এপ্রুভ করানো খুবই ইজি! আপনি আপনার স্মার্টফোন দিয়ে আপনার আশেপাশে ভিডিও শুট করে ইউটিউবে পাবলিশ করতে পারেন !

এবং এডসেন্স এপলাই  করলে আপনি খুব ইজিলি এডসেন্সের অ্যাপ্রভাল পেয়ে যাবেন ! আর ওয়েবসাইট এর এডসেন্স হচ্ছে নন হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট ! ওয়েবসাইটের এর জন্য অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল নেওয়া খুব কঠিন ! 

এজন্য কিছু জিনিস আপনাকে মাথায় রাখতে হবে যেমন আপনি নিজে আর্টিকেল লিখবেন, আপনি অন্য কোথা থেকে কপি করতে পারবেন না এবং কনটেন্ট এর মধ্যে কোন রকম কপিরাইট ইমেজ বা গ্রাফিক্স ইউজ করা যাবে না! বিশেষ করে যখন অ্যাডসেন্সে আপনার ওয়েবসাইট এপলাই হয়নি ততক্ষণ পর্যন্ত!

এপ্রুভ হয়ে গেলে দেন আপনি কিছুটা করতে পারেন তাতে কোন অসুবিধা হবে না ! কিন্তু এপ্রুভ হওয়ার পূর্বে আপনি কোন প্রকার কপিরাইট ইমেজ বা গ্রাফিক্স ইউজ করতে পারবেন না ! আপনি শুরুর দিকে ২০ থেকে 25 টা আর্টিকেল পাবলিশ করে দিন যে কোন বিষয়ের উপর হতে পারে !


টিউটোরিয়াল হতে পারে, বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর রিভিউ হতে পারে, বিভিন্ন স্টরি হতে পারে, যে বিষয় আপনাকে ভালো লাগে সে বিষয়ের উপর আপনি  লেখালেখি করতে পারেন! অনেক স্টক ফটো সাইট আছে যেখানে আপনি ফ্রিতে বিভিন্ন ধরনের ইমেজ পেয়ে যাবেন!

আরেকটা বিষয় লক্ষ্য রাখতে হয় সেটা হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটে অবশ্যই অ্যাবাউট আস' পেইজ যেখানে আপনার সম্পর্কে যাবতীয় তথ্যগুলো লেখা থাকবে যে কি রিলেটেড ওয়েবসাইট কারা কারা এখানে লিখছে এই বিষয়গুলো, তারপর হচ্ছে টার্মস এন্ড কন্ডিশন পেইজ যেখানে কিছু নিয়ম কানুন লেখা থাকবে ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করতে হলে,

তারপর আরেকটি পেজ হচ্ছে প্রাইভেসি পলিসি, ভিজিটরের প্রাইভেসি কিভাবে মেইনটেইন করা হয় আপনার ওয়েবসাইটে সেসব  বিষয়গুলো আপনাকে লিখে রাখতে হবে !


এবং লাস্টে হবে কন্টাক্ট পেইজ যেখানে ভিজিটর আপনার সাথে কন্টাক্ট করতে পারে এই বিষয়গুলো লক্ষ্য রেখে আপনি এডসেন্সে এপ্লাই করবেন দেখবেন আপনি খুব সহজেই এডসেন্সএর এপ্রুভাল  পেয়ে যাবেন !

যদি প্রথম চান্সে অ্যাপ্রুভ নাও হয় গুগল আপনাকে ইমেইল করে জানিয়ে দেবে যে, কোন কোন বিষয়গুলোর জন্য আপনার ওয়েবসাইটে অ্যাপ্রুভ হয়নি, তারপরে সেই বিষয়গুলো আপনি ফিক্সড করে আবারো এপ্লাই করতে পারেন দেখবেন আপনার ওয়েবসাইট অ্যাপ্রুভ রূপ হয়ে যাবে!

৫. গুগল এডসেন্স একাউন্ট থেকে আপনি কিভাবে ডলার উড্রো করবেন?

 অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ হয়ে গেলে আপনার একাউন্ট এর মধ্যে একটা সেটিংস অপশন আছে সেখানে আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করতে পারবেন!

যেমন ব্যাংকের নাম, আপনার নাম, আপনার অ্যাকাউন্ট নাম্বার, সুইফট বি আই সি কোড, এগুলো যুক্ত করে দিলে অটোমেটিক্যালি আপনার একাউন্টে মাস শেষে ডলার ট্রান্সফার করে দেবে। ন্যূনতম 100 ডলার হলেই তারা আপনার একাউন্টে ডলার টা ট্রান্সফার করে দেবে। 



তো বন্ধুরা, এই ছিল গুগল এডসেন্স সম্পর্কিত কিছু তথ্য আশা করি আপনাকে এগুলো হেল্প করবে। এই ধরনের টেকনোলজি রিলেটেড আরও আর্টিকেল পাওয়ার জন্য আপনি আমার ব্লগটি ফলো করতে পারেন।

তো দেখা হবে নেক্সট আর্টিকেলে ততক্ষন পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন এবং পরিবারের খেয়াল রাখুন এবং দেশকে ভালো বাসুন।

No comments:

Post a Comment