শসা চাষের পদ্ধতি এবং উপযুক্ত সময় | Cucumber Cultivation Method and Suitable Time - Bangla SMS Point (Blogging - Finance and Cryptocurrency)

Latest

Tuesday, May 24, 2022

শসা চাষের পদ্ধতি এবং উপযুক্ত সময় | Cucumber Cultivation Method and Suitable Time

 শসা চাষের পদ্ধতি এবং উপযুক্ত সময় | শসা চাষে সার প্রয়োগ


শসা চাষের পদ্ধতি | শসা চাষ | শসা চাষ পদ্ধতি মাটিতে | শসা চাষের আধুনিক পদ্ধতি | শসা চাষের উপযুক্ত সময় | শসা চাষে সার প্রয়োগ | শসা চাষ পদ্ধতি টবে | শসা চাষ পদ্ধতি ছাদে

Cucumber is a familiar vegetable. Cucumber is in great demand in our country. Cucumber prices are also good in the market. 

Cucumber cultivation is a profitable agriculture. Cucumber has many qualities. Let's know about the cucumber cultivation method and fertilizer management-




    শসার পরিচিতি:

    শসার বোটানিক্যাল নাম Cucumis sativus. শসার উৎপত্তি ভারতে। এটি একটি আরোহণকারী উদ্ভিদ যা সারা ভারতে গ্রীষ্মকালীন সবজি হিসেবে ব্যবহৃত হয়। 

    শসার ফল কাঁচা খাওয়া হয় বা সালাদ হিসাবে পরিবেশন করা হয় বা সবজি হিসাবে রান্না করা হয়। শসার বীজ তেল নিষ্কাশনে ব্যবহৃত হয় যা শরীর ও মস্তিষ্কের জন্য ভালো। 

    শসা চাষের পদ্ধতি এবং উপযুক্ত সময়
    শসা চাষের পদ্ধতি এবং উপযুক্ত সময়

    শসায় 96% জল থাকে যা গ্রীষ্মের মৌসুমে ভাল। গাছপালা বড় আকারের, পাতা লোমযুক্ত এবং আকৃতিতে ত্রিভুজাকার এবং ফুল হলুদ রঙের। 

    শসা হল Mb (Molybdenum) এবং ভিটামিন K-এর একটি চমৎকার উৎস। ত্বকের সমস্যা, কিডনি এবং হার্টের সমস্যা নিরাময়ে শসা ব্যবহার করা হয় এবং অ্যালকালাইজার হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

    ভারতে শসার স্থানীয় নাম:

    • কামল কাকড়ি - Kamal Kakadi (Hindi)
    • কাক্কারি - Kakkari (Malayalam)
    • কাকড়ি - Kakdi (Marathi)
    • দোসাকায়া / কিরা - Dosakaya/Keera (Telugu)
    • ভেল্লারিককাই - Vellarikkai (Tamil)
    • শসা - Shosa (West Bengal/ Bangladesh)

    ভারতে চাষ করা শসার জনপ্রিয় জাত:

    • Straight Eight – কুল্লু উপত্যকায় IARI-এর আঞ্চলিক স্টেশন দ্বারা ভারতে প্রবর্তিত একটি আমেরিকান জাত।
    • Japanese Long Green – IARI, কুল্লু ভ্যালির আঞ্চলিক স্টেশন দ্বারা প্রকাশিত।
    • Poinsette - ভারতের জাতীয় বীজ কর্পোরেশন দ্বারা প্রবর্তিত একটি আমেরিকান জাত। এটি অ্যানথ্রাকনোজ, পাউডারি মিলডিউ, ডাউনি মিলডিউ এবং কৌণিক পাতার দাগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধী।
    • Pusa Sanyog – গ্রীন লং নেপলস এবং জাপানিজ গাইনোসিয়াস লাইনের মধ্যে একটি F1 হাইব্রিড, IARI, কুল্লু ভ্যালি দ্বারা প্রকাশিত। দুর্ভাগ্যবশত, বীজ উৎপাদনের অভাবে এই শসা বাজারে পৌঁছাতে পারেনি।
    • Pant Khira 1 or PCUC 28 – এতে পান্তনগরের দেশীয় জার্মপ্লাজম রয়েছে।
    • Pant Sankar Khira 1 - এটি একটি সংকর যা পন্তনগরে PCUC 8 X PCUC 28 এর ক্রস দ্বারা তৈরি করা হয়েছে।

    প্রধান শসা হাইব্রিডের মধ্যে রয়েছে মালিনী এবং হারশিনি যা সবুজ ফল দেয় এবং জিপসি যা সাদা ফল দেয়। ভারতের অনেক জায়গায় জায়েদ মৌসুমের ফসল হিসেবেও শসা চাষ করা হয়।

    শসা রোপণের জন্য প্রয়োজনীয় আবহাওয়া:

    শসা ফসলের জন্য মাঝারিভাবে উষ্ণ তাপমাত্রার প্রয়োজন হয় এবং তাপমাত্রায় সবচেয়ে ভাল বৃদ্ধি পায় 20°C থেকে 24°C এর মধ্যে। এটি হিম অবস্থার জন্য উপযুক্ত নয়।

    শসা চাষের জন্য উপযুক্ত মাটি:

    বেলে দোআঁশ মাটি থেকে এঁটেল মাটি পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের মাটিতে শসা চাষ করা যায়

    জৈব কম্পোস্ট বা যেকোনো ফার্ম যোগ করে নিশ্চিত করুন যে মাটিতে জৈব পদার্থ রয়েছে  কি না।

    উচ্চ ফলনের জন্য ইয়ার্ড সার (FMY)। মাটির pH 5.5 এবং 6.7 এর মধ্যে হওয়া উচিত সর্বোত্তম বৃদ্ধির জন্য অনুকূল।

    শসার জন্য মাটি প্রস্তুতি:

    মূল ক্ষেত্রটি বীজ বপনের জন্য পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে প্রস্তুত করা উচিত। চারবার জমি চাষ করুন এবং 1.5 মিটার দূরত্বে দীর্ঘ চ্যানেল তৈরি করুন।

    শসা চাষে সেরা ঋতু, বীজের হার, এবং বীজ শোধন:

    জুন বা জানুয়ারি থেকে এপ্রিল মাস শসার বীজ বপনের জন্য উপযোগী। এক হেক্টরের জন্য প্রায় 3 কেজি শসার বীজ প্রয়োজন। 

    বপনের আগে শসার বীজকে -
    • সিউডোমোনাস ফ্লুরোসেন্স (Pseudomonas Fluorescens) 10 গ্রাম প্রতি কেজি, অথবা 
    • ট্রাইকোডার্মা ভিরাইড (Trichoderma Viride) 4 গ্রাম প্রতি কেজি, অথবা 
    • কার্বেন্ডাজিম (Carbendazim) 2 গ্রাম প্রতি কেজি বীজ দিয়ে শোধন করুন।

    বারোমাসি শসা চাষ
    বারোমাসি শসা চাষ

    শসা চাষের পদ্ধতিঃ

    শসার বীজ 1.5 মিটার থেকে 2.5 মিটার (সারি থেকে সারিতে) x 60 সেমি থেকে 90 সেমি দূরত্বে ডিব্লিং পদ্ধতিতে বপন করতে হবে। (Plant spacing)। 

    প্রতিটি গর্তে দুই থেকে তিনটি শসার বীজ বপন করতে হবে। রিং এবং বেসিং পদ্ধতিতে লেআউট পছন্দ করতে হবে।

    শসা চাষে সার প্রয়োগ:

    মাটি তৈরির সময় 40 থেকে 50 কার্টলোড ভাল পচনশীল ফার্মইয়ার্ড সার (FYM) যোগ করতে হবে। 

    25 kg P/ha 50 kg N, দিতে হবে N এবং পূর্ণ ফসফরাস শসার বীজ বপনের সময় দিতে হবে এবং বাকি অর্ধেক N বীজ বপনের ৩০ দিন পর দিতে হবে।

    শসা চাষে সেচের প্রয়োজনীয়তা:

    শসা চাষের জন্য ড্রিপ সেচ সবচেয়ে কার্যকর পদ্ধতি। প্রধান এবং উপ-প্রধান পাইপগুলির সাথে একটি ড্রিপ সেচ ব্যবস্থা ইনস্টল করুন এবং 1.5 মিটারের ব্যবধানে ইনলাইন ল্যাটারাল টিউবগুলি রাখুন। 

    ড্রিপারগুলিকে 60 সেমি এবং 50 সেমি ব্যবধানে যথাক্রমে 4 এলপিএইচ এবং 3.5 এলপিএইচ ক্ষমতা সহ পার্শ্বীয় টিউবগুলিতে রাখতে হবে। 

    গ্রীষ্মকালীন ফসলের জন্য আর্দ্রতা বজায় রাখার জন্য সেচ দিতে হবে এবং বর্ষা মৌসুমে ফসলের জমি থেকে জল বার করার সুবিধা রাখতে হবে।

    শসার আগাছা নিয়ন্ত্রণ:

    আগাছা নিয়ন্ত্রণের জন্য শসা গাছের বৃদ্ধির প্রাথমিক পর্যায়ে অগভীর চাষ দেওয়া যেতে পারে। আগাছা নিয়ন্ত্রণের জন্য হার্বিসাইড ব্যবহার করা যেতে পারে।

    শসার কীটপতঙ্গ ও রোগ:

    শসা চাষের প্রধান রোগ হল ডাউনি মিলডিউ এবং ম্যানকোজেব বা ক্লোরোথালোনিল 2 গ্রাম/লিটার 12 দিনের ব্যবধানে দুইবার প্রয়োগ করে এটি নিয়ন্ত্রণ করা যায়। 

    শসার কীটপতঙ্গ ও রোগ
    শসার কীটপতঙ্গ ও রোগ

    প্রধান কীট হল ফ্রুট ফ্লাই এবং এটি নিয়ন্ত্রণ করা যায় 1) আক্রান্ত শসা তুলে ধ্বংস করে।

    শসা সংগ্রহ ও ফলন:

    বীজ বপনের 40 থেকে 45 দিন পর ফসল সংগ্রহ করা যায়। গড়ে ৮ থেকে ১০টি ফসল সংগ্রহ করা যায়। 

    ফলের ভালো মানের জন্য সময়মতো শসা বাছাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ফলন: সালাদের উদ্দেশ্যে 80 থেকে 90 দিনে 8 থেকে 10 টন/হেক্টর।

    শসা বাজারজাতকরণ:

    স্থানীয় বাজারে এর ভালো চাহিদা থাকায় ট্রাকের মাধ্যমে পরিবহন করা যায়।

    মনে রেখো:

    স্বাস্থ্যকর সবজি আপনাকে ভালো ফলন দিয়ে সম্পদশালী করে তোলে।


    শসা চাষের মাটি তৈরি | শসা চাষের মাচা তৈরি | শসা চাষ পদ্ধতি মালচিং | হাইব্রিড শসা চাষের পদ্ধতি | হাইব্রিড শসা বীজ | সিনজেনটা শসা বীজ | শসা বীজের দাম | উন্নত মানের শসা বীজ | বারোমাসি শসা চাষ

    No comments:

    Post a Comment